1. zobairahmed461@gmail.com : Zobair : Zobair Ahammad
  2. adrienne.edmonds@banknews.online : adrienneedmonds :
  3. annette.farber@ukbanksnews.club : annettefarber :
  4. camelliaubq5zu@mail.com : arnider :
  5. patsymillington@hidebox.org : bennystenhouse :
  6. steeseejep2235@inbox.ru : bobbye34t0314102 :
  7. nikitakars7j@myrambler.ru : carljac :
  8. celina_marchant44@ukbanksnews.club : celinamarchant5 :
  9. sk.sehd.gn.l7@gmail.com : charitygrattan :
  10. clarencecremor@mvn.warboardplace.com : clarencef96 :
  11. chebotarenko.2022@mail.ru : dorastrode5 :
  12. lawanasummerall120@yahoo.com : eltonvonstieglit :
  13. tonsomotoconni401@yahoo.com : fmajeff171888 :
  14. judileta@partcafe.com : gildastirling98 :
  15. padsveva3337@bk.ru : janidqm31288238 :
  16. michaovdm8@mail.com : latmar :
  17. mahmudCBF@gmail.com : Mahmudul Hasan : Mahmudul Hasan
  18. marti_vaughan@banknews.live : martivaughan6 :
  19. crawkewanombtradven749@yahoo.com : marvinv379457 :
  20. deirexerivesubt571@yahoo.com : meridithlefebvre :
  21. lecatalitocktec961@yahoo.com : normanposey6 :
  22. gracielafitzgibbon5270@hidebox.org : princelithgow52 :
  23. randi-blythe78@mobile-ru.info : randiblythe :
  24. berrygaffney@hidebox.org : rose25e8563833 :
  25. incolanona1190@mail.ru : sibyl83l32 :
  26. pennylcdgh@mail.com : siribret :
  27. harmony@bestdrones.store : velmap38871998 :
  28. karleengjkla@mail.com : weibad :
  29. dhhbew0zt@esiix.com : wpuser_nugeaqouzxup :
রেলের কলোনিগুলো এতো ঘিঞ্জি কেন?
বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৩:১৭ অপরাহ্ন

রেলের কলোনিগুলো এতো ঘিঞ্জি কেন?

জয়দীপ দে
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৪৫৪ বার পড়া হয়েছে
Why are the railway colonies so crowded?

রেলের কলোনি মানেই সারি সারি বাক্স বাড়ি। একটা লম্বা চালের নিচে আট দশটা পরিবার। এমনভাবে কলোনিগুলো করা হলো কেন? অথচ দেখবেন অফিসার বা সুপারভাইজারদের বাসাগুলো কেমন খোলামেলা। সামনে পেছনে বিশাল জায়গা।

এর আসল রহস্য জানতে হলে আপনাকে ১৯৪৭ সালে যেতে হবে। একসময় সারা ভারতে বিহারের মুসলিম কর্মচারীরা রেলের ছোটখাটে কাজ করত। এই যেমন খালাসি পয়েন্টসম্যান ক্লিনার ফায়ারম্যান। আর ছিল উত্তরপ্রদেশের লোক। ৪৬ এর দাঙ্গার পর দলে দলে লোক বর্ধমান হয়ে পার্বতীপুরের দিকে আসতে শুরু করে। দেশভাগের পর বাকি যারা ছিল তারাও এসে হাজির হয়ে পূর্ব পাকিস্তানে। একসময় দেখা যায় ১২ হাজার লোক অতিরিক্ত হয়ে গেছে পাকিস্তান রেলওয়েতে।

এতো মানুষের আবাসনের ব্যবস্থা তো আর রেলওয়ের নেই। লোকজন মালগাড়ির ওয়াগনে পরিবার নিয়ে উঠল। কেউ স্টেশনের পাশে ছাপড়া তুলল। কেউ অন্যের কোয়ার্টারের উঠোনে। এক ভয়াবহ দৃশ্য। তখন নিম্নবেতনের কর্মচারীদের দেয়া হত রেশন। এতো মানুষের রেশন দিতে গিয়ে রেল কর্তৃপক্ষ হিমশিম খেতে লাগল। গ্রেন শপগুলো ভরে গেলে খাওয়ার অনুপযুক্ত খাদ্যশস্যে। এদিকে পূর্ব পাকিস্তানে তীব্র খাদ্য সংকট দেখা দেয়। ১ লক্ষ টন খাদ্যের ঘাটতি। তাই নিম্ন বেতনের কর্মচারীরা চাইলেও পয়সা দিয়ে খাদ্য কিনতে পারছিল না। শুধু আবাসন ও খাদ্য নয়, চাকুরিগত অনেক সমস্যা ছিল নিম্ন কর্মচারীদের। তারা গ্যাজেটেড অফিসারদের মতো ছুটি পেতেন না। কাজ করলে বেতন নইলে নেই।

১৯৪৯ সালে রেল কর্তৃপক্ষ কয়েক হাজার শ্রমিক ছাটাই করে। ভিটে মাটি ছেড়ে আসা উদ্বাস্তু শ্রমিকরা দিশেহারা হয়ে পড়ে। রেল অঙ্গন উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পরে আবার নতুন লোক নেয়া হয়। এক হযবরল অবস্থা।

শ্রমিক সংগঠনগুলো সরকারের উপর চাপ দিতে থাকে। সরকারের আসলে বিশেষ কিছু করার ছিল না। জরুরি ভিত্তিতে ১ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয় রেলওয়ে কর্মচারীদের আবাসন ব্যবস্থা করার জন্য। তখন সরকারের লক্ষ্য ছিল কম পয়সায় যত বেশি বাসা বানানো যায়। তাই লম্বা সারি ধরা কোয়ার্টার।

এতে যে সমস্যার সমাধান হয়েছিল এমনটা নয়। মাত্র ৩০% কর্মচারীর আবাসনের ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়েছিল। তখন রেলওয়ে বিনা সুদে আবাসন ঋণ দিতে শুরু করে মোহাজের কর্মচারীদের। এই ঋণের টাকায় কিছু আবাসিক এলাকা গড়ে উঠেছিল। সে গল্প পরের লেখায় পাবেন।

এই সমস্যা শুধু যে পূর্ব পাকিস্তানে ছিল তা নয়। ভারতেও দেখা দিয়েছিল। তাই কমিউনিস্ট পার্টি নিয়ন্ত্রিত রেল রোড ওয়ার্কার্স ইউনিয়ন ৯ মার্চ ভারত ও পাকিস্তানে রেল ধর্মঘট ডাকে। কিন্তু অপরাপর শ্রমিক সংগঠনগুলোর বিরোধিতার কারণে এই ধর্মঘট পণ্ড হয়।

সেই ধর্মঘটের দিন শ্রমিক নেতা আব্দুল বারীর নেতৃত্বে জয়দেবপুর ও টঙ্গীর মধ্যবর্তী খইলকইর গ্রামে রেললাইন তুলে ফেলে রেল শ্রমিকরা। তার নেতা ছিলেন ঢাকা রেল স্টেশনের এক কেরানী সাহেব। দুইজনই পরে গ্রেপ্তার হন। জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার অল্প কিছুদিন পর রোগ শোকে দুজনই মারা যান।

সেই নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সাক্ষী রেল পাড়া। আরো মজার ব্যাপার অনেকে বলেন পাকিস্তান আমলে পূর্ব পাকিস্তানে ৬০ হাজারের বেশি লোক রেলওয়েতে কাজ করত। কথা ঠিক। তখন বিপুল সংখ্যাতিরিক্ত মানুষ ছিল।

 

 


প্রিয় পাঠক, ‘দিন রাত্রি’তে লিখতে পারেন আপনিও! লেখা পাঠান এই লিংকে ক্লিক করে- ‘দিনরাত্রি’তে আপনিও লিখুন

লেখাটি শেয়ার করুন 

এই বিভাগের আরো লেখা

Useful Links

Thanks

© All rights reserved 2020 By  DinRatri.net

Theme Customized BY LatestNews